তুর্কি মন্ত্রীর সাথে যুবরাজ সালমানের সামরিক সম্পর্ক বিষয়ে ফোনালাপ

তুরস্ক সেনাবাহিনীর নতুন কন্টিনজেন্ট কাতারে এসে পৌঁছার পর সউদী আরবের প্রতিরক্ষামন্ত্রী যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান সামরিক সম্পর্ক নিয়ে তুর্কি প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সাথে ফোনে কথা বলেছেন। সউদী আরবের সরকারী বার্তা সংস্থা এসপিএ একথা জানিয়েছে। সন্ত্রাসবাদে সহযোগিতার অভিযোগ তুলে সউদীসহ আরব দেশগুলো দোহার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের পর কাতারের পক্ষে এসে দাঁড়িয়েছে তুরস্ক। অবশ্য কাতার সন্ত্রাসবাদে কাউকে সহযোগিতার কথা বরাবর অস্বীকার করে আসছে।
এসপিএ জানায় যে, তুর্কি প্রতিরক্ষামন্ত্রীর ফিকরি ইসিকের সূচিত আল্চোনায় উঠে আসে পারস্পরিক সম্পর্ক বিশেষ করে প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে সহযোগিতার বিষয়টি। বার্তা সংস্থার রিপোর্টে আর কোন তথ্য দেয়া হয়নি।
কাতার গত মঙ্গলবার জানায়, দোহার একটি সামরিক ঘাঁটিতে আরো তুর্কি সৈন্য এসে পৌঁছেছে। সেখানে জরুরী ভিত্তিতে আরো বেশি সৈন্য মোতায়েনের ব্যাপারে গত মাসে আঙ্কারা সিদ্ধান্ত নেয়। তবে কত সৈন্য সে বিষয়ে কোন তথ্য দেয়া হয়নি। দোহায় তুরস্কের সামরিক ঘাঁটি বন্ধসহ বেশ কিছু দাবিদাওয়া পূরণের শর্ত দেয় কাতারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপকারী প্রতিবেশী দেশ সউদী আরব, আরব আমীরাত, মিসর ও বাহরাইন। তবে কাতার তাদের দাবি নাকচ করে দিয়ে জানায়, তারা ৪টি দেশের সাথে আলোচনায় সম্মত রয়েছে। সূত্র : রয়টার্স।

Sharing is caring!

(Visited 1 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *